বিজ্ঞপ্তি :

সাংবাদিক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2023 :- বহির্বিশ্ব সহ বাংলাদেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা এবং বিশ্ববিদ্যালয় (আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আবেদনের যোগ্যতা :- বয়স:- সর্বনিম্ন ২০ বছর হতে হবে। শিক্ষাগত যোগ্যতা:- আবেদনকারীকে সর্বনিন্ম এইচএসসি পাশ হতে হবে। কমপক্ষে ১ বছরে অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। (তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিদের ক্ষেত্রে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী হতে হবে অথবা কমপক্ষে ১ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।) অতিরিক্ত যোগ্যতা:- স্মার্ট ফোন থাকতে হবে। নিজেদের প্রকাশিত নিউজ অবশ্যই নিজে ফেসবুকে শেয়ার করতে হবে একই সঙ্গে বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে প্রচার করতে হবে। এছাড়াও প্রতিদিন অন্তত ০৩ টি নিউজ শেয়ার করতে হবে। (বাধ্যতামূলক) অবশ্যই অফিস থেকে দেয়া এ্যাসাইনমেন্ট সম্পন্ন করতে হবে। নিউজের ছবি এবং নিউজের সঙ্গে ভিডিও পাঠাতে হবে ( ছবি কপি করা যাবে না কপি করলে তা উল্লেখ করতে হবে)। বেতন ভাতা :- মাসিক বেতন ও বিজ্ঞাপনের কমিশন আলোচনা সাপেক্ষে। আবেদন করতে আপনাকে যা করতে হবে :- আমাদের ই-মেইলের ঠিকানায় ছবিসহ জীবন বৃত্তান্ত (Cv), সিভির সঙ্গে জাতীয় পরিচয়পত্র এর কপি, সর্ব্বোচ্চ শিক্ষাগত সনদ এর কপি, পাসপোর্ট সাইজের ছবি, অভিজ্ঞতা থাকলে প্রমাণ স্বরুপ তথ্য প্রেরণ করতে হবে । মনে রাখবেন :- সিভি অবশ্যই নিজের ব্যক্তিগত মেইল থেকে পাঠাতে হবে। কারণ যে মেইল থেকে সিভি পাঠাবেন অফিস থেকে সেই মেইলেই রিপ্লাই দেওয়া হবে। ই–মেইল পাঠাতে বিষয় বস্তু অর্থাৎ Subject–এ লিখতে হবে কোন জেলা/ উপজেলা/ ক্যাম্পাস প্রতিনিধি। আমাদের সাথে যোগাযোগের ঠিকানা :- Email:- bondhantv@gmail.com টেলিফোন:- +8809638788837, +8801911040586 (Whatsapp), সকাল ৯টা থেকে রাত ১১.৫৯ পর্যন্ত। আমাদের নিয়োগ পদ্ধতি :- প্রথমে আপনার কাগজ যাচাই বাছাই করা হবে। আপনি প্রাথমিক ভাবে চুড়ান্ত হলে সেটি সম্পাদকের কাছে প্রেরণ করা হবে। সর্বশেষ সম্পাদক কর্তৃক চুড়ান্ত হলে আপনার সাথে যোগাযোগ করা হবে মোবাইল এবং ইমেল এর মাধ্যমে। আপনাকে আমাদের ট্রেনিং এবং অবজারভেশন ফেসবুক গ্রুপে এড করা হবে। তারপর আপনাকে ৫ দিন নিউজ পাঠাতে বলা হবে। এর পর চুড়ান্ত নিয়োগের ১ মাসের মধ্যে আপনার কার্ড প্রেরণ করা হবে। নিউজ পাঠানোর মাধ্যম:- আমাদের মেইল আইডি, মেসেঞ্জার গ্রুপ, ইউজার আইডির মাধ্যমে পাঠাতে পারবেন। নিউজ অবশ্যই ইউনিকোড ফরমেটে পাঠাতে হবে। নিউজের সাথে ছবি থাকলে তা পাঠাতে হবে। নিউজের যদি কোন তথ্য প্রমাণ থাকে তবে তা প্রেরণ করতে হবে। বি:দ্র: সকল শর্ত পরিবর্তন, পরিমার্জন এবং বর্ধিত করনের অধিকার কর্তৃপক্ষের কাছে সংরক্ষিত। মন্তব্য: BondhanTv – বন্ধন টিভি আমাদের নিজস্ব আয়ে চ্যানেলটি পরিচালিত হয়। আমরা কোন গ্রুপ বা কোম্পানির অর্থ বা কোন স্পন্সরের অর্থদ্বারা পরিচালিত নয়।

ভারত থেকে হাজার হাজার বানর এলো বাংলাদেশে, অতিষ্ঠ স্থানীয়রা


বন্ধন টিভি ডেস্ক
প্রকাশের সময় : জানুয়ারি ১৩, ২০২৪, ২:৫২ অপরাহ্ণ
ভারত থেকে হাজার হাজার বানর এলো বাংলাদেশে, অতিষ্ঠ স্থানীয়রা

ভারত থেকে হাজার হাজার বানর এলো বাংলাদেশে, অতিষ্ঠ স্থানীয়রা।ভারত থেকে হাজার হাজার বানর এসেছে বাংলাদেশে। এতে বানরের জ্বালায় অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন স্থানীয়রা।

ফেনীর ফুলগাজী উপজেলার ২নং মুন্সিরহাট ইউনিয়নের আওতাধীন পৈথারা, ফকিরের খিল, কামাল্লা, বদরপুর ও জামমুড়ার ভারত সীমান্তবর্তী এলাকায় ভারত থেকে এসেছে কয়েক হাজার বানর।
ত্রিপুরা রাজ্যের একজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ভারতের বনাঞ্চলে পর্যাপ্ত খাবার না থাকায় খাবারের খোঁজে বানরের দল সীমান্তের কাঁটাতার পেরিয়ে দলবেঁধে আসছে লোকালয়ে। হানা দিচ্ছে ফসলের ক্ষেতে ও ফলের বাগানে। ফলে এসব এলাকার প্রান্তিক কৃষকরা বানরের হাত থেকে রক্ষা করতে পারছে না, আলু, বেগুন, বরবটি, সিমসহ বিভিন্ন সবজির বাগান।

স্থানীয়রা বলছেন, ভারতের অন্য রাজ্যে বানরের উৎপাত বেড়ে যাওয়ায়, ভারতের সীমান্তরক্ষী বিএসএফ কয়েক হাজার বানর এনে ত্রিপুরা রাজ্যের বনাঞ্চলে অবমুক্ত করে। সেই বানরগুলোই বনাঞ্চলে খাবার না পেয়ে দলে দলে ছুটি আসছে লোকালয়ে। প্রতিদিন বানরগুলো দুই-তিনটি দলে বিভক্ত হয়ে দিনে দুবার সময় করে হানা দেয় স্থানীয় কৃষকের আম, কাঁঠাল, সবজির বাগানসহ শস্যক্ষেতে। বাড়িতে ঢুকে খেয়ে ফেলছে এলাকাবাসীর রান্না করা খাবার।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি শাহাদাত হোসেন জানান, গেল দু-তিন মাস ধরে ভারত থেকে আসা বানরের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এখানকার স্থানীয় বাসিন্দা এবং কৃষকরা। বানরগুলোকে বাংলাদেশ থেকে তাড়ানোর জন্য বন বিভাগের উদ্যোগ নেওয়া উচিত।

আরও পড়ুনঃ ইয়েমেনে মার্কিন-ব্রিটিশ হামলা নিয়ে বিভক্ত ইউরোপ

স্থানীয় কৃষক আব্দুল মুনাফ বলেন, প্রতিদিন ভারত থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে বানরগুলো এসে আমাদের ফসলের জমিসহ বিভিন্ন সবজির বাগান নষ্ট করছে। বানরগুলোকে তাড়ালেও যায় না। বানরের হাত থেকে ফসল রক্ষা করতে এখন চব্বিশ ঘণ্টা আমাদের ফসলের মাঠে থাকতে হচ্ছে।

এ বিষয়ে বন বিভাগের সদর রেঞ্জ কর্মকর্তা বাবুল চন্দ্র ভৌমিক বলেন, যেহেতু এরা নিরীহ প্রাণী এদের মারা যাবে না। আগুন জ্বালিয়ে ধোঁয়া দেখিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে বানরগুলোকে তাড়াতে হবে। সীমান্তবর্তী এলাকায় আমরা লোক পাঠাব এ বিষয়ে কৃষকদের সচেতন করার চেষ্টা করব।

সীমান্তবর্তী এলাকার এ সমস্ত প্রান্তিক কৃষকেরা বানরের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতে বন বিভাগের সহযোগিতা কামনা করেছেন। সচেতন মহল বলছে, বন বিভাগ সঠিক উদ্যোগ নিলে হয়তো বানরের উৎপাত থেকে কিছুটা হলেও রক্ষা পাবে স্থানীয় কৃষকরা।

Spread the love
Link Copied !!