বিজ্ঞপ্তি :

সাংবাদিক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2023 :- বহির্বিশ্ব সহ বাংলাদেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা এবং বিশ্ববিদ্যালয় (আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আবেদনের যোগ্যতা :- বয়স:- সর্বনিম্ন ২০ বছর হতে হবে। শিক্ষাগত যোগ্যতা:- আবেদনকারীকে সর্বনিন্ম এইচএসসি পাশ হতে হবে। কমপক্ষে ১ বছরে অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। (তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিদের ক্ষেত্রে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী হতে হবে অথবা কমপক্ষে ১ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।) অতিরিক্ত যোগ্যতা:- স্মার্ট ফোন থাকতে হবে। নিজেদের প্রকাশিত নিউজ অবশ্যই নিজে ফেসবুকে শেয়ার করতে হবে একই সঙ্গে বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে প্রচার করতে হবে। এছাড়াও প্রতিদিন অন্তত ০৩ টি নিউজ শেয়ার করতে হবে। (বাধ্যতামূলক) অবশ্যই অফিস থেকে দেয়া এ্যাসাইনমেন্ট সম্পন্ন করতে হবে। নিউজের ছবি এবং নিউজের সঙ্গে ভিডিও পাঠাতে হবে ( ছবি কপি করা যাবে না কপি করলে তা উল্লেখ করতে হবে)। বেতন ভাতা :- মাসিক বেতন ও বিজ্ঞাপনের কমিশন আলোচনা সাপেক্ষে। আবেদন করতে আপনাকে যা করতে হবে :- আমাদের ই-মেইলের ঠিকানায় ছবিসহ জীবন বৃত্তান্ত (Cv), সিভির সঙ্গে জাতীয় পরিচয়পত্র এর কপি, সর্ব্বোচ্চ শিক্ষাগত সনদ এর কপি, পাসপোর্ট সাইজের ছবি, অভিজ্ঞতা থাকলে প্রমাণ স্বরুপ তথ্য প্রেরণ করতে হবে । মনে রাখবেন :- সিভি অবশ্যই নিজের ব্যক্তিগত মেইল থেকে পাঠাতে হবে। কারণ যে মেইল থেকে সিভি পাঠাবেন অফিস থেকে সেই মেইলেই রিপ্লাই দেওয়া হবে। ই–মেইল পাঠাতে বিষয় বস্তু অর্থাৎ Subject–এ লিখতে হবে কোন জেলা/ উপজেলা/ ক্যাম্পাস প্রতিনিধি। আমাদের সাথে যোগাযোগের ঠিকানা :- Email:- bondhantv@gmail.com টেলিফোন:- +8802226663556, +8801911040586 (Whatsapp), সকাল ৯টা থেকে রাত ১১.৫৯ পর্যন্ত। আমাদের নিয়োগ পদ্ধতি :- প্রথমে আপনার কাগজ যাচাই বাছাই করা হবে। আপনি প্রাথমিক ভাবে চুড়ান্ত হলে সেটি সম্পাদকের কাছে প্রেরণ করা হবে। সর্বশেষ সম্পাদক কর্তৃক চুড়ান্ত হলে আপনার সাথে যোগাযোগ করা হবে মোবাইল এবং ইমেল এর মাধ্যমে। আপনাকে আমাদের ট্রেনিং এবং অবজারভেশন ফেসবুক গ্রুপে এড করা হবে। তারপর আপনাকে ৫ দিন নিউজ পাঠাতে বলা হবে। এর পর চুড়ান্ত নিয়োগের ১ মাসের মধ্যে আপনার কার্ড প্রেরণ করা হবে। নিউজ পাঠানোর মাধ্যম:- আমাদের মেইল আইডি, মেসেঞ্জার গ্রুপ, ইউজার আইডির মাধ্যমে পাঠাতে পারবেন। নিউজ অবশ্যই ইউনিকোড ফরমেটে পাঠাতে হবে। নিউজের সাথে ছবি থাকলে তা পাঠাতে হবে। নিউজের যদি কোন তথ্য প্রমাণ থাকে তবে তা প্রেরণ করতে হবে। বি:দ্র: সকল শর্ত পরিবর্তন, পরিমার্জন এবং বর্ধিত করনের অধিকার কর্তৃপক্ষের কাছে সংরক্ষিত। মন্তব্য: BondhanTv – বন্ধন টিভি আমাদের নিজস্ব আয়ে চ্যানেলটি পরিচালিত হয়। আমরা কোন গ্রুপ বা কোম্পানির অর্থ বা কোন স্পন্সরের অর্থদ্বারা পরিচালিত নয়।

যশোরে নিষিদ্ধ ৭৪ মণ আফ্রিকান মাগুর জব্দের পর ধ্বংস


বন্ধন টিভি ডেস্ক
প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১১, ২০২২, ৫:৪২ অপরাহ্ণ
যশোরে নিষিদ্ধ ৭৪ মণ আফ্রিকান মাগুর জব্দের পর ধ্বংস

যশোরে নিষিদ্ধ ৭৪ মণ আফ্রিকান মাগুর জব্দের পর ধ্বংস করা হয়েছে। যশোর সদর উপজেলার পুলেরহাটের নিমতলায় ৭৪ মণ নিষিদ্ধ আফ্রিকান মাগুর জব্দ করার পর ধ্বংস করা হয়েছে। সোমবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৬ যশোরের অধিনায়ক লে. কমান্ডার নাজিউর রহমান নিমতলা থেকে নিষিদ্ধ আফ্রিকান মাগুর বোঝাই দু’টি ট্রাক জব্দ করেন।

এরপর রাতে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনুপ দাশ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জয়নাল আবেদিন ও রিপন হোসেন নামে দুইজনের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন। জয়নাল চাঁচড়া ডালমিলের মৃত আব্দুর কাদের মোল্লা ও রিপন ব্রা²নবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার নাটগর গ্রামের মালন মিয়ার ছেলে। জব্দকৃত ৭৪ মণ আফ্রিকান মাগুর চাঁচড়া মৎস্য বিক্রি কেন্দ্রের পাশে মাটি চাপা দিয়ে ধ্বংস করা হয়েছে। এসব মাগুর চাঁচড়ার মাছ ব্যবসায়ী নাজমুল হোসেন চট্টগ্রামে পাঠাচ্ছিলেন বলে জানায় র‌্যাব।

ট্রাক চালক ইমরান হোসেন জানান, জয়নাল দালালের কথামতো তিনি মাছ নিয়ে চট্টগ্রামের উদ্দেশে যাচ্ছিলেন। এগুলো নিষিদ্ধ তা তিনি জানতেন না। র‌্যাব-৬ যশোরের অধিনায়ক লে. কমান্ডার নাজিউর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারেন, সোমবার বিকেল পাঁচটায় নিমতলা থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশে নিষিদ্ধ আফ্রিকান মাগুর পাঠানো হচ্ছে। ওই সময় অভিযান চালিয়ে ট্রাক দু’টিকে জব্দ করা হয়।

ড্রাইভার পাঙ্গাস মাছ বলে প্রতারণার চেষ্টা করলেও তারা নিষিদ্ধ আফ্রিকান মাগুর হিসেবে চিহ্নিত করেন। পরে ট্রাকসহ মাছ চাঁচড়া মৎস্য বিক্রি কেন্দ্রে এনে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হয়। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনুপ দাশ বলেন, মৎস্য সুরক্ষা ও সংরক্ষণ আইনে দু’ড্রাইভারকে পাঁচ হাজার করে মোট ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আফ্রিকান মাগুর চাষ, পরিবহন বা বিক্রি সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ বলে জানান তিনি। মাছ ধ্বংস ও জরিমানা আদায়কালে সদর উপজেলা মৎস্য অফিসার সাইদুর রহমান রেজা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুনঃ আফ্রিকান মাগুর ও পিরানহা : নিষিদ্ধ এই ‘রাক্ষুসে’ মাছগুলো কীভাবে আসছে বাংলাদেশে?

স্থানীয়রা জানান চিহ্নিত মাগুর ব্যবসায়ি নাজমুল হোসেন সরকারি মৎস্য বিক্রয় কেন্দ্রের পিছনে বসবাস করে। তার পিতার নাম আউয়াল হোসেন। সদর উপজেলার মালঞ্চি গ্রামে তার আরো প্রায় নিষিদ্ধ মাগুর মজুদ রয়েছে পুকুরে।

ডালমিলের জনৈক কামরুল ওরফে ট্যারা কামরুলসহ অন্তত ২০/২২ জন এখনো সরকারি নিষেধ অমান্য করে নিষিদ্ধ আফ্রিকান মাগুর ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এমনকি মাগুরপট্টি রাস্তার পাশে তাদের এসব নিষিদ্ধ মাছ বিক্রির অফিস পর্যন্ত রয়েছে। যদিও ওসব অফিসের কোন অনুমতি বা মাছ বিক্রির ট্রেড লাইসেন্স আছে কিনা তা জানা যায়নি। অথবা এরা কোন খুঁটির জোরে নিষিদ্ধ আফ্রিকান মাগুরের দেদারছে অবৈধ ব্যবসা করছে তা কারো বোধগম্য হচ্ছেনা।

Spread the love
Link Copied !!