বিজ্ঞপ্তি :

সাংবাদিক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি 2023 :- বহির্বিশ্ব সহ বাংলাদেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা এবং বিশ্ববিদ্যালয় (আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আবেদনের যোগ্যতা :- বয়স:- সর্বনিম্ন ২০ বছর হতে হবে। শিক্ষাগত যোগ্যতা:- আবেদনকারীকে সর্বনিন্ম এইচএসসি পাশ হতে হবে। কমপক্ষে ১ বছরে অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। (তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিদের ক্ষেত্রে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী হতে হবে অথবা কমপক্ষে ১ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।) অতিরিক্ত যোগ্যতা:- স্মার্ট ফোন থাকতে হবে। নিজেদের প্রকাশিত নিউজ অবশ্যই নিজে ফেসবুকে শেয়ার করতে হবে একই সঙ্গে বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে প্রচার করতে হবে। এছাড়াও প্রতিদিন অন্তত ০৩ টি নিউজ শেয়ার করতে হবে। (বাধ্যতামূলক) অবশ্যই অফিস থেকে দেয়া এ্যাসাইনমেন্ট সম্পন্ন করতে হবে। নিউজের ছবি এবং নিউজের সঙ্গে ভিডিও পাঠাতে হবে ( ছবি কপি করা যাবে না কপি করলে তা উল্লেখ করতে হবে)। বেতন ভাতা :- মাসিক বেতন ও বিজ্ঞাপনের কমিশন আলোচনা সাপেক্ষে। আবেদন করতে আপনাকে যা করতে হবে :- আমাদের ই-মেইলের ঠিকানায় ছবিসহ জীবন বৃত্তান্ত (Cv), সিভির সঙ্গে জাতীয় পরিচয়পত্র এর কপি, সর্ব্বোচ্চ শিক্ষাগত সনদ এর কপি, পাসপোর্ট সাইজের ছবি, অভিজ্ঞতা থাকলে প্রমাণ স্বরুপ তথ্য প্রেরণ করতে হবে । মনে রাখবেন :- সিভি অবশ্যই নিজের ব্যক্তিগত মেইল থেকে পাঠাতে হবে। কারণ যে মেইল থেকে সিভি পাঠাবেন অফিস থেকে সেই মেইলেই রিপ্লাই দেওয়া হবে। ই–মেইল পাঠাতে বিষয় বস্তু অর্থাৎ Subject–এ লিখতে হবে কোন জেলা/ উপজেলা/ ক্যাম্পাস প্রতিনিধি। আমাদের সাথে যোগাযোগের ঠিকানা :- Email:- bondhantv@gmail.com টেলিফোন:- +8809638788837, +8801911040586 (Whatsapp), সকাল ৯টা থেকে রাত ১১.৫৯ পর্যন্ত। আমাদের নিয়োগ পদ্ধতি :- প্রথমে আপনার কাগজ যাচাই বাছাই করা হবে। আপনি প্রাথমিক ভাবে চুড়ান্ত হলে সেটি সম্পাদকের কাছে প্রেরণ করা হবে। সর্বশেষ সম্পাদক কর্তৃক চুড়ান্ত হলে আপনার সাথে যোগাযোগ করা হবে মোবাইল এবং ইমেল এর মাধ্যমে। আপনাকে আমাদের ট্রেনিং এবং অবজারভেশন ফেসবুক গ্রুপে এড করা হবে। তারপর আপনাকে ৫ দিন নিউজ পাঠাতে বলা হবে। এর পর চুড়ান্ত নিয়োগের ১ মাসের মধ্যে আপনার কার্ড প্রেরণ করা হবে। নিউজ পাঠানোর মাধ্যম:- আমাদের মেইল আইডি, মেসেঞ্জার গ্রুপ, ইউজার আইডির মাধ্যমে পাঠাতে পারবেন। নিউজ অবশ্যই ইউনিকোড ফরমেটে পাঠাতে হবে। নিউজের সাথে ছবি থাকলে তা পাঠাতে হবে। নিউজের যদি কোন তথ্য প্রমাণ থাকে তবে তা প্রেরণ করতে হবে। বি:দ্র: সকল শর্ত পরিবর্তন, পরিমার্জন এবং বর্ধিত করনের অধিকার কর্তৃপক্ষের কাছে সংরক্ষিত। মন্তব্য: BondhanTv – বন্ধন টিভি আমাদের নিজস্ব আয়ে চ্যানেলটি পরিচালিত হয়। আমরা কোন গ্রুপ বা কোম্পানির অর্থ বা কোন স্পন্সরের অর্থদ্বারা পরিচালিত নয়।

বলরামপুরের তরিকুলের ধাপ্পাবাজ সিন্ডিকেটের ফাঁদে নিঃস্ব রূপদিয়ার শত শত মানুষ


মালিকুজ্জামান কাকা, যশোর
প্রকাশের সময় : এপ্রিল ১৫, ২০২৪, ৭:৪৪ অপরাহ্ণ
বলরামপুরের তরিকুলের ধাপ্পাবাজ সিন্ডিকেটের ফাঁদে নিঃস্ব রূপদিয়ার শত শত মানুষ

এক চিন্নিত ঠগ জোচ্চোর ধাপ্পাবাজ ও তার দোসরদের নিয়ে বিপাকে রূপদিয়া ও তার আশে পাশের মানুষ। নানামুখি প্রতারণায় লোকজনের কাছ থেকে টাকা পয়সা হাতিয়ে নিচ্ছে সে ও তার দোসররা।

যাশোর সদর উপজেলার এই এলাকায় বহুদিন ধরে এসব বাটপারি চলে আসলেও কেউ প্রতিবাদ করে না। বলরামপুরের তরিকুল (৫০) সিন্ডিকেট প্রধান হয়ে বিভিন্ন প্রকল্প ইস্যু করে সাধারণ মানুষকে টার্গেট করে আর্থিক প্রতারণা করছে। তার ফাঁদে পড়ে নিরীহ মানুষ কোটি টাকার ক্ষতিগ্রস্থ। এসব অপরাধে তার দুই সহযোগী হচ্ছে বলরামপুরের ইজাহারের ছেলে জিয়াউর, চৌহাটির মৃত আবুলের ছেলে রফিকুল ইসলামসহ আরো কয়েক জন।

বহু মানুষের কাছ থেকে সাব মার্সিবল কূপ দেবে বলে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে তরিকুল গঙ। কেউ এখনো কোন সাব মার্সিবল কূপ পায়নি বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুনঃ কণ্ঠশিল্পী খালিদ আর নেই

সরেজমিনে দেখা যায়, ৩ লাখ ৯০ হাজার টাকা মাথাপিছু গ্রহন করেছে তরিকুল, জিয়াউর, রফিকুলরা। দু একটি বাড়ির ভিত শুরু হওয়ার পর কাজ পড়ে আছে। ভিতে বড়ো জোর ১০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে।

গ্রামবাসি জানায়, অপরাধী তরিকুল বলরামপুর নসিমন স্ট্যান্ডে তার বোনের বাড়ি বসবাস করে। তার দুলাভাই বদর অবশ্য কোন ঝামেলায় থাকে না। বলরামপুরের নূর ইসলাম, মিঠু, সাহাবুর, গনি, গোপালপুরের কুদ্দুসসহ আরো অনেকেই তরিকুল গঙ কে টাকা দিয়ে এখন চরম বিপদে। তবে অনেকে টাকা দিয়েও ঝুট ঝামেলার ভয়ে চুপচাপ রয়েছে। শোনা যায় তরিকুলের দোসররা হুমকি দেওয়ায় এরা ভয়ে চুপ হয়ে আছেন।

স্থানীয় মেম্বর হজরত বিষয়টি জানলেও এখনো এই অপরাধী চক্র দমনে কোন কার্যকরী উদ্যোগ নেননি।

চায়ের দোকানে বসে কয়েক জন জানান, টাউট তরিকুলের ভুয়া প্রকল্পের শেষ নেই। ওই চক্রের ফাঁদে পড়ে বহু মানুষ নিঃস হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ পুরান ঢাকার দেড় ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে আসে ঘি পট্টির আগুন নিয়ন্ত্রণে

স্থানীয়রা জানান, তরিকুল ৫/৬ বছর আগে সদর উপজেলার ১৪নং নরেন্দ্রপুর ইউনিয়নের জিরাট থেকে এখানে আসে। এর পর থেকে চলছে তার একের পর এক ফোর টুয়েনটি ধাপ্পাবাজি অর্থ আয়ের হরেক প্রকল্প। এদের ভয়ে সাধারণ গ্রামবাসি মুখ খুলতে পারে না।

গ্রামবাসি তরিকুল ও তার দোসরদের অপরাধ দমনে জেলা পুলিশ সুপারের সদয় দৃষ্টি কামনা করেছেন আর যাতে নতুন করে কেউ আর্থিক প্রতারণায় না পড়ে।

Spread the love
Link Copied !!